ক্রীড়াবিদের মানসিক অনুশীলন

ক্রীড়াবিদের মানসিক অনুশীলন

খেলার ফলাফল প্রভাবিত করতে খেলোয়াড়রা নানান ধরনের কৌশল অবলম্বন করে থাকে। সবার যে একই কৌশল কাজে দেয় তা কিন্তু নয়, বরং দেখা যায় একেকজন খেলোয়াড়ের ক্ষেত্রে একেক রকম প্রয়োগ পদ্ধতি কার্যকর হয়ে উঠে। তেমনিই এক কার্যকর পদ্ধতির নাম “মেন্টাল ইমাজেরী” (Mental imagery)

‘Mental imagery’ এর মূল কৌশল হলো, একজন ক্রীড়াবিদ তার ইন্দ্রিয়গুলো ব্যবহার করে নিজেকে এমন একটি পরিবেশে কল্পনা করবে যেখানে নির্দিষ্ট কোনো খেলায় অংশ নিচ্ছে বা পারফর্ম করছে। দর্শন, শ্রবন, অনুভূতি এবং ঘ্রাণ সকল ইন্দ্রয়কেই সে এখানে কাজে লাগানোর চেষ্টা করতে পারবে।

বিখ্যাত গলফার জ্যাক নিকলাউস (Jack Nicklaus) তার প্রতিটি শট এর পূর্বে এই কৌশল কাজে লাগাতেন। এতে তার ভীষণ উপকার হতো বলে বর্ণনা করে তিনি বলেন, আমি কখনও আমার প্র্যাক্টিসের সময়টাতেও কোনো শট নেই না যতক্ষণ না সেই শট এর একটি গাঢ় মানসিক দাবী আমার অন্তরে আমি রিহার্সেল করে না নেই। এটি যেন আমার কাছে রঙীন সিনেমার গল্পের মতো সত্য।”

প্রশ্ন জাগতে পারে, কীভাবে এবং কোন সময়ে ‘মেন্টাল ইমাজেরী” প্রয়োগ করে একজন ক্রীড়াবিদ সার্বিক ভাবে উপকৃত হতে পারে? ক্রীড়া মনোবিজ্ঞানীগণ মনে করেন ভালো ফলাফলের জন্য প্রতিদিন, প্রতি সেশনে এই কৌশল নিয়ে কাজ করা শ্রেয়তর। ট্রেনিং এর সময়, ট্রেনিং এ যাওয়ার পথে এবং ট্রেনিং থেকে ফেরার পথেও এই মানসিক চর্চা অব্যাহত রাখলে ভালো ফলাফল করা সহজ হয়ে উঠে।

যেকোনো অনুশীলনের কোনো দক্ষতা নিয়ে কাজ করার পূর্বে মনে মনে সেটার চর্চা করে নেয়া উচিত। গবেষণায় দেখা যায়, মূল প্রতিযোগিতার পূর্বেও যদি এই মানসিক অনুশীলন খেলোয়াড়রা করে থাকেন তবে অধিকাংশ খেলোয়াড়ের ফলাফলে তা গুরুত্বপূর্ণ প্রভাবক হিসেবে কাজ করে। তাই আমরা ক্রিকেটে প্রায় সব ব্যাটসম্যান বোলারদের খেলায় খেলোয়াড়দের শ্যাডো প্র্যাক্টিস (shadow practice) করতে দেখি।

Mental imagery এর উপকারীতা বর্ণনা করতে গিয়ে স্পোর্টস সাইকোলজিস্টরা মূলত নিম্নলিখিত কথাগুলো বলেছেন-
১- অপরিচিত পরিবেশে প্রবেশের পূর্বে ক্রীড়াবিদকে কিছুটা পরিচিত করা।
২- তার লক্ষ্যের কথা বার বার স্মরণ করিয়ে তাকে অনুপ্রেরণা দেয়া।
৩- যেসব দক্ষতায় সে পারদর্শী তাঁকে আরো নিখুঁত হতে সহায়তা করা।
৪- মনে অহেতুক হেরে যাওয়ার চিন্তাকে প্রশ্রয় না দেয়া।
৫- মনোযোগ হারিয়ে ফেললে পুনরায় মনোযোগ ফিরিয়ে আনা।
৬- সাফল্যের চিন্তা করে মনে পজিটিভ অনুভূতি নিয়ে আসা।

স্পোর্টস সাইকোলজিতে একটি কথা খুব ব্যবহৃত হয়। তা হলো, ‘You only achive what u believe’ একজন ক্রীড়াবিদ তাই অর্জন করবে যা সে দৃঢ় ভাবে বিশ্বাস করতে সক্ষম হয়। মানসিক এই দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে একজন ক্রীড়াবিদ সাফল্যের উচ্চ শিখরে পৌঁছে যাক- এমনইটি আমাদের কামনা।


প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব। মনের খবরের সম্পাদকীয় নীতি বা মতের সঙ্গে লেখকের মতামতের অমিল থাকতেই পারে। তাই মনের খবরে প্রকাশিত কলামের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নেবে না কর্তৃপক্ষ।

ডা. সাইদুল আশরাফ কুশল

এমডি রেসিডেন্ট (সাইকিয়াট্রি) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা