মূল পাতা / জীবনাচরণ / সুখের পথে বাঁধা ৫ টি অস্বাস্থ্যকর আচরণ

সুখের পথে বাঁধা ৫ টি অস্বাস্থ্যকর আচরণ

অনেক মানুষ নিজের অজান্তে এমন কিছু অভ্যাসের সাথে নিজেকে জড়িয়ে রাখে, যা সুখের পথে বাঁধা হয়ে দাঁড়ায়। অর্থহীনভাবে তারা সেই আচরণের পুনরাবৃত্তি করে এবং ভাবতে থাকে, তারা কেন মনমরা হয়ে যাচ্ছে। যদি আপনি আপনার জীবনে সুখ বজায় রাখতে চান, তবে নিজেকে দমিয়ে রাখে এমন অভ্যাসগুলো থেকে নিজেকে সরিয়ে আনুন।

১. নিজের ব্যাপারে সমালোচনামূলক কথা বলা:
আপনি কি নিজের ভেতর থেকে নিজের ব্যাপারে সমালোচনামূলক কণ্ঠ শুনতে পান? তবে সেটাতে কান না দেয়ার এখনি সময়। আপনার নিজের সুবিধাজনক স্থান থেকে বেরিয়ে আসার জন্য এটি আপনাকে বাঁধা দেয়। আপনার প্রকৃতিগত সীমারেখা থেকে বের হয়ে আসুন একসময় এ ধরণের কথাগুলো ফ্যাকাশে হয়ে যেতে থাকবে।

২. সবাইকে খুশি রাখা:
সবাইকে খুশি রাখা ততক্ষণ পর্যন্ত ইতিবাচক যখন এটি আপনাকেও সন্তুষ্ট রাখবে। যখন আপনি অনিচ্ছা সত্ত্বেও অন্যকে খুশি করতে যাবেন, তখন সেটা আপনার অসুখী হবার কারণ হবে।আপনি তখনই এটি করুন যখন আপনার মনে এতে সায় দেয়, অন্যথায় নয়।

৩. দীর্ঘসূত্রিতা:
আপনার অপছন্দের কাজগুলো কখনো দীর্ঘ সময়ের জন্য দূরে সরিয়ে রেখেছেন? দীর্ঘসূত্রিতা আপনার আনন্দকে চুরি করে, কারণ এটা আপনার সুখকে আটকে রাখে। আপনি যতক্ষণ পর্যন্ত একটি কাজ ঝুলিয়ে রাখবেন, ততক্ষণ আপনি অসুখী বোধ করবেন। সফল মানুষেরা কোনো কাজ ফেলে রাখে না। তাদের অনুসরণ করুন।

৪. নতুন কিছু শেখার ব্যাপারে অজুহাত তৈরি:
নতুন কিছুর সাথে খাপ খাইয়ে নেয়া বেশ কঠিন বটে। তবে আপনি আগে থেকে জানেন না সেটি আপনার সাথে যাবে কি যাবে না। সেই ব্যাপারগুলো এড়িয়ে যাবার জন্য আপনি নানা অজুহাত তৈরি করেন।

আপনি জানেন, নতুন যা কিছু আপনার জন্য ভালো হবে, সেটি এড়িয়ে চলা আপনার নিজের জন্যই ক্ষতিকর হবে। যদি আপনি এমন অজুহাত তৈরি করেন, তবে এখনই সেটা বন্ধ করুন এবং নতুন কিছু শিখতে উদ্যমী হয়ে উঠুন।

৫. আপনি নিজের চাহিদাকে প্রকাশ করেন না:
যখন আপনি কারো সাথে সুখী নন, তখন কি আপনি তার কারণ ব্যাখ্যা করেছেন? নাকি অন্যকে দোষারোপ করে গেছেন? বিপরীত দিকের মানুষকে ব্যাখ্যা করুন আপনি কেন অসুখী। এই অনুভূতির প্রকাশ আপনাকে সুখী করে তুলতে পারে।

তো, এখন থেকে নিজেকে বলুন, “যখন আমি…………. .বোধ করি” এরপর নিজেই বলুন ঠিক কোন উপায়টি আপনাকে সুখী করে তুলতে পারে?

তথ্যসূত্র: সাইকসেন্ট্রাল ডটকমে প্রকাশিত  John D. Moore এর রচনা অবলম্বনে লিখেছেন সুপ্তি হালদার।

লিংক: https://blogs.psychcentral.com/life-goals/2018/04/5-unhealthy-behaviors/?li_source=LI&li_medium=popular17