স্বাস্থ্য ও মানসিক স্বাস্থ্য

স্বাস্থ্য ও মানসিক স্বাস্থ্য

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা স্বাস্থ্যের সংজ্ঞা দিয়েছে পরিস্কার ভাবে মানসিক স্বাস্থ্যকে সংযুক্ত করেই এবং এটা উল্লেখ করেছে মানসিক স্বাস্থ্য ব্যাতিরেকে কোনো স্বাস্থ্য নেই। মানসিক স্বাস্থ্য শুধু মাত্র মানসিক রোগ না থাকাই নয়। মানসিক স্বাস্থ্য বলতে এটা বোঝায় যে এমন অবস্থা যেখানে একজন মানুষ তার নিজের সম্ভাবনা বুঝতে পারবেন, নিজের দৈনন্দিন জীবনের স্ট্রেস মোকাবেলা করতে পারবেন এবং নিজের জন্য, সমাজের জন্য উৎপাদনশীল কাজে যুক্ত থাকতে পারবেন। আরও অনেকভাবে মানসিক স্বাস্থ্য ব্যাখ্যা করা যায়। সব কিছুর উপরে আমি যে তথ্য আজকে নজরে আনতে চাই আমরা মানসিক স্বাস্থ্য, মন, মনের ভাল লাগা, মন্দ লাগা কত বার ভাবি। আমার পর্যবেক্ষণ মাত্র ভুল হতে পারে; আমাদের চিকিৎসক সমাজের সদস্যরাই মন বলে কিছু আছে এবং সেটার যত্ন নেওয়া দরকার সেটা ভুলে যাই। আমাদের পারিপার্শ্বিকতা হয়ত সেটা আমাদের বুঝতে সহযোগিতা করে না। মাঝখান দিয়ে রোগীদের ভোগান্তি বাড়ে।  গবেষণায় দেখা গেছে শারীরিক রোগ মানসিক রোগের ঝুঁকি বাড়াতে পারে আবার মানসিক রোগ শারীরিক রোগের সকল অংশে প্রভাব ফেলে। একটিকে বাদ দিয়ে আর একটি ভাবতে গেলে কিছু অংশ বাদ থেকেই যায়। আধুনিক পৃথিবীতে সামগ্রিক চিকিৎসা সেবার দিকে অগ্রসর হচ্ছে, আমরা কোন দিকে আছি?

আমদের মত উন্নয়নশীল দেশে মনের খবর রাখা আসলেই অনেক কঠিন। দেশ সমাজ সময় এগিয়ে যাচ্ছে, এখনই সময় আমাদের সবার নিজের মনের খবর নেওয়ার সচেনতা বাড়ানোর। মনটা ভাল তো! মনের ওপর জোর করে আর কত দিন, এক দিন মনই আপনার আমার উপর জোর করে বসবে।