মূল পাতা / সংবাদ / মৌসুমী বিষণ্ণতা

মৌসুমী বিষণ্ণতা

উত্তরাংশের জলবায়ুতে যাদের বসবাস, তাদের কাছে শীতকালীন বিষণ্ণতা খুবই প্রচলিত একটি বিষয়। চিকিৎসাশাস্ত্রে একে Seasonal Affective Disorder বা মৌসুমী আবেগসংক্রান্ত ব্যাধি বলা হয়ে থাকে। এই ব্যাধিটি মোট জনসংখ্যার ৫% মানুষের মধ্যে বিদ্যমান, যাদের অধিকাংশের বাস উত্তরাংশে।

এই বিষণ্ণতাটির গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হলো, যখন শীতকাল শুরু হয় অর্থাৎ তাপমাত্রা কমে আসে এবং দিন ছোট হতে থাকে তখন একধরণের বিষণ্ণতা কাজ করে অনেকের ভেতর।

এর অন্যান্য বৈশিষ্ট্যের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো অতিরিক্ত খাদ্যগ্রহণ, অতিরিক্ত ঘুম, ওজন বৃদ্ধি ইত্যাদি। বিষণ্ণতার লক্ষণগুলো শীতের শুরু থেকে আরম্ভ হয়ে বসন্তের শেষ পর্যন্ত চলতে পারে। পুরুষদের তুলনায় অন্তত ২/৩ গুণ বেশি নারীরা এরূপ বিষণ্ণতার শিকার হয়ে থাকে।
এই বিষণ্ণতাটি এমনকি গ্রীষ্ম ঋতুতেও দৃশ্যমান হতে পারে, যদিও তখন এর প্রকোপ তুলনামূলক কম। এরূপ বিষণ্ণতার শিকার ব্যক্তিরা কাজেকর্মে অনাগ্রহ প্রকাশ করে। দুঃখবোধ, হতাশবোধ, দীর্ঘসূত্রিতা এসময়ের খুবই প্রচলিত কিছু লক্ষণ।

কিছু সাহায্যকারী পদক্ষেপঃ
এমন বেশকিছু উপায় আছে, যার মাধ্যমে ব্যক্তি নিজেকে মৌসুমী বিষণ্ণতায় সাহায্য করতে পারেন। যেমনঃ যতটা সম্ভব নিজেকে সূর্যের আলোতে মেলে ধরুন। শীতকালে আরামদায়কভাবে সূর্যের আলো উপভোগ হতে পারে একটি দারুণ সাহায্যকারী ব্যাপার। অভ্যাস না থাকলেও দিনের আলোতে হাঁটাহাঁটি করার অভ্যাস গড়ে তুলুন। দক্ষিণমুখী জানালার আশেপাশে বসুন যেখান থেকে সূর্যের আলো উপভোগ করতে পারেন। নিয়মিত শরীরচর্চাও হতে পারে আরেকটি উপায়। যদিও এটা কঠিন হতে পারে, তবে একটি কর্মব্যস্ত দিনলিপি আপনার এরূপ বিষণ্ণতাকে দূরে ঠেলে দিতে পারে। ঘুমের আগে কিংবা ঘুম থেকে ওঠার কিছু আগে রুমের আলো জ্বালিয়ে রাখতে পারেন। এটাও বেশ সাহায্যকারী পদক্ষেপ।

লাইট থেরাপি একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। এটা বেশ খরচসাপেক্ষ হলেও কিছু পদ্ধতি আছে তার মূল্য থাকবে হাতের নাগালেই। যেমনঃ স্বাভাবিকের তুলনায় একটু বেশি উজ্জ্বল আলো বাড়ির নির্দিষ্ট কিছু কোণায় লাগালে উপকার পাওয়া যায়। এধরণের কৃত্রিম আলো অনেকটা প্রাকৃতিক সূর্যের আলোর মতো কাজ করে।

যদি উপরোক্ত কোনো পন্থা আপনাকে সাহায্য করতে না পারে, তবে চিকিৎসকের সাহায্য নেয়া যেতে পারে। এতে বিব্রতবোধ করার কিছু নেই। একটু সচেতনতা এই মৌসুমী বিষণ্ণতা কাটিয়ে উঠতে আপনাকে সাহায্য করতে পারে।

তথ্যসূত্র: সাইকসেন্ট্রাল ডটকমে প্রকাশিত John M. Grohol, এর রচনা অবলম্বনে লিখেছেন সুপ্তি হালদার

লিংক: https://psychcentral.com/lib/seasonal-affective-disorder/