মূল পাতা / প্রশ্ন-উত্তর / ‘‘দুশ্চিন্তার ওপর নিয়ন্ত্রণ আনতে পারলে যৌন সমস্যার সমাধান হবে।’’

‘‘দুশ্চিন্তার ওপর নিয়ন্ত্রণ আনতে পারলে যৌন সমস্যার সমাধান হবে।’’

সমস্যা: প্রিয় স্যার, আমার নাম রাসেল। আমি দীর্ঘদিন ধরে ED প্রবলেমে ভুগছি। আমি যখন সহবাস করতে যাই, আমার পেনিস ঠিক মতো দাঁড়ায় না, যদিওবা একটু দাঁড়ায়, বুকের মাঝখানটায় ধপ করে ওঠে এবং সাথে সাথে পেনিস শীতল হয়ে পরে। হাজার চেষ্টা করেও আর দাঁড়া করাতে পারি না। আমি মানসিকভাবে অনেক ভেঙে পরেছি। বাঁচতে মন চায় না। নিজের কষ্টটা কাউকে বোঝাতে পারছি না। আমার IBS রোগটাও আছে। অনেকবার পাতলা পায়খানা হয় দিনের বেলা। পেট ব্যথা করে। সবসময় শরীর দুর্বল লাগে। আমি কী করবো? অনেক হারবাল ঔষধ খেয়েছি, কোনো লাভ হয়নি। প্লিজ স্যার, আমার জন্য কিছু করেন। আমার হেপাটাইটিস বি পজিটিভ আছে, তবে পয়েন্ট খুব কম। স্যার, আমাকে একটু হেল্প করেন প্লিজ। আমি অনেক কষ্টে আছি।

আমি প্রতিদিন হস্তমৈথুন করি ৩ থেকে ৪ বার। আমার বউ আমার সাথে কথা বলে না। আমি এক সময় একটা ভয়ঙ্কর টেনশন করতাম। এখন ঐ প্রবলেম নাই, কিন্তু সেক্স নিয়ে খুব সমস্যায় আছি।

পরামর্শ: প্রথমেই ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি দেরি করে উত্তর দেওয়ার জন্য। ভাই রাসেল, আপনার সমস্যাটা অতি সাধারণ হলেও সমাধানটা একটু কষ্টসাধ্য। সে কারণেই আপনি দীর্ঘদিন ধরে সমস্যাটায় ভুগছেন। বিভিন্ন রকম চিকিৎসা করিয়েও আপনি সুস্থ হয়ে উঠতে পারেননি। আসলে সমাধানটা আপনার নিজের হাতেই। এ জন্য প্রয়োজন আপনার নিজেকে আগে বোঝা। আপনি যদি আপনার দুশ্চিন্তার ওপর নিয়ন্ত্রণ আনতে পারেন, তাহলেই আপনার সমস্যা অর্থাৎ লিঙ্গের শক্ত হওয়া জনিত সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। যৌন মিলনের সময় লিঙ্গ যে শক্ত হয়, তা মূলত রক্ত প্রবাহের কারণে হয়।

দুশ্চিন্তায় লিঙ্গে কম রক্ত সঞ্চালিত হয়, ফলে শক্তও কম হয়। আবার শক্ত হওয়ার পরেও তা যথেষ্ট স্থায়ী হয় না। আপনার যৌন উত্তেজনার সাথে বুক ধরফর করা, আইবিএস এ ভোগা নির্দেশ করে আপনি দুশ্চিন্তায় সহজেই আক্রান্ত হন। এক সময় আপনি ভয়ঙ্কর টেনশন করতেন। কী নিয়ে টেনশন করতেন বলেননি। দুশ্চিন্তার বিভিন্ন ধরনের রোগ আছে, যেমন অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিসঅর্ডার, জেনারালাইজ্ড এ্যাঙজাইটি ডিসঅর্ডার এরকম কয়েকটির নাম বলা যায়। আপনাকে সরাসরি দেখতে পেলে বোঝা যেত আপনি কোন ধরনের দুশ্চিন্তার রোগে ভুগছেন। হতাশ হওয়ার কিছু নেই। আপনি আপনার চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোরোগবিদ্যা বিভাগের বর্হিবিভাগে চলে আসুন। চিকিৎসা নিন ভাল থাকুন। প্রশ্ন করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।