মূল পাতা / অষ্টম আইসিপি / মানসিক রোগ নিয়ে মানুষের নেতিবাচক মনোভাব উল্লেখযোগ্য হারে কমছে

মানসিক রোগ নিয়ে মানুষের নেতিবাচক মনোভাব উল্লেখযোগ্য হারে কমছে

মানসিক রোগ নিয়ে দেশের মানুষের যে নেতিবাচক মনোভাব তা দিনকে দিন কমছে। নব্বই দশকে এই হারটি ছিল ৮০ শতাংশ। ২০০৯ সালে এটি ছিল ৪১ শতাংশ। এবং বর্তমানে এর হার দাড়িয়েছে ১৩ শতাংশে। মানসিক রোগ নিয়ে মানুষের নেতিবাচক প্রবণতা উল্লেখযোগ্য হারে কমে যাচ্ছে।

আজ শনিবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের উইন্ডো টাউন কক্ষে এ কথা বলেন প্রফেসর ডা. মোহিত কামাল। ‘বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে গণমাধ্যমে মানসিক স্বাস্থ্য’ বিষয়টির মৌখিক উপস্থাপনের সময় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বিভিন্ন দশকের মানুষের মধ্যে মানসিক রোগ নিয়ে নেতিবাচক প্রবণতার গবেষণার তথ্য উপস্থাপন করে বলেন, উল্লেখযোগ্য হারে কমছে স্টিগমা (stigma) প্রবণতা। ১৯৯৮ সালের এক গবেষণায় দেখা গেছে, ৮০ শতাংশ মানুষ মানসিক সমস্যা হলে ‘তাবিজ’ সেবার দ্বারস্থ হত। ২০০৯ সালের এক গবেষণা বলছে, ৪১ শতাংশ মানুষ মনে করতো এটি ‘শয়তানের” আছড় দ্বারা সংগঠিত হয়। কিন্তু বর্তমান বছরে এটি ১৩ শতাংশে নেমে এসেছে।

এর পেছনে সবচেয়ে বড় অবদান রাখছে গণমাধ্যম বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, গণমাধ্যম এই প্রবণতার হার কমাতে সবেচেয়ে বেশি অবদান রেখেছে। বিশেষ করে যারা এই মনোরোগ পেশায় নিয়োজিত তাদের প্রবন্ধসহ গণমাধ্যমে কর্তব্যরত সাংবাদিকদের ইতিবাচক রিপোর্ট কাজে দিয়েছে।

চিকিৎসকদের উতাত্ত আহ্বান জানিয়ে বলেন, নতু প্রজন্মের চিকিৎসকদের এগিয়ে আসতে হবে। তাঁদের উক্ত বিষয়ে জ্ঞান আহোরণ করে তা প্রায়োগিক ক্ষেত্রে কাজে লাগাতে হবে। মানুষকে মানসিক স্বাস্থ্যে আগ্রহ ও সেবা পেতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।

জাহিদ হাসান, প্রতিবেদক
মনেরখবর.কম