মূল পাতা / অষ্টম আইসিপি / বাংলাদেশের প্রবাসীদের সিজোফ্রেনিয়া রোগে ভোগার হার বেশি

বাংলাদেশের প্রবাসীদের সিজোফ্রেনিয়া রোগে ভোগার হার বেশি

বর্তমান বছরে দেশ থেকে প্রায় ৫১ হাজার ৫শ’ বায়ান্ন জন অভিবাসনে গিয়েছে। দুই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে তারা বিদেশ গিয়েছে। প্রথমটি ‘পুলিং পদ্ধতিতে’ দ্বিতীয়টি ‘পুশিং পদ্ধতিতে’ অর্থাৎ বাধ্য হয়ে। যার ফলে এদের অনেকেই মারাত্মক মানসিক রোগ সিজোফ্রেনিয়াতে ভুগছেন।

আজ শনিবার বন্ধবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের উইন্ডো টাউন কক্ষে এ কথা বলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোরোগবিদ্যা বিভাগের মেডিকেল অফিসার সিফাত-ই-সাইদ। ‘অভিবাসন এবং সাংস্কৃতিক অভিযোজন’ বিষয়টি ওরাল প্রেজেন্টেশনের সময় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, দেশ থেকে যখন অভিবাসন প্রক্রিয়া শেষ করে বিদেশে পৌঁছায় তখন তাঁদের মধ্যে হতাশা জন্ম নেয়। তারা ঐ দেশের নতুন সংস্কৃতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারে না। যার ফলে তাঁদের মনের মধ্যে বিষণ্ণতা বাস করা শুরু করে। এতে করে তারা এক পর্যায়ে সিজোফ্রেনিয়া রোগে ভুগতে থাকে।

তবে সাংস্কৃতিক অভিযোজনের মাধ্যমে অর্থাৎ সাংস্কৃতিক প্রশিক্ষণ ও বিদেশে গিয়ে পরিস্থিতির মোকাবেলায় জনশক্তিদের পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণ দেয়া হলে এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যাবে বলে মনে করেন তিনি।

জাহিদ হাসান, প্রতিবেদক
মনেরখবর.কম