মাতৃদুগ্ধ, প্রিম্যাচিউর শিশুর মস্তিষ্ক বিকাশে সহায়ক

নির্ধারিত সময়ের আগে জন্ম নেওয়া যে সকল শিশু মায়ের দুধ পান করে, তাদের মস্তিষ্কের বিকাশ খুব ভালোভাবে হয় বলে এক গবেষণায় উঠে এসেছে। গবেষণাটিতে আরো জানা যায়, এ সকল শিশুদের বুদ্ধিমত্তা, স্মৃতি, পেশীর সক্রিয়তা গুলোও খুব ভালো হয়৷

গর্ভকাল সাধারণত ৩৯-৪০ সপ্তাহ পর্যন্ত হয় (পূর্ণ-মেয়াদ)। তবে কিছু শিশু নির্ধারিত সময়ের আগেই জন্মগ্রহণ করে। এসকল শিশুরা সাধারণত গর্ভকালীন সময়ের ৩৭ সপ্তাহের মধ্যে জন্মগ্রহণ করে থাকে।

পূর্ণ-মেয়াদী শিশুদের মস্তিষ্ক বিকাশের জন্য মাতৃদুগ্ধ খুবই উপকারী।  বলা হয়ে থাকে যে, মায়ের দুধে নির্দিষ্ট কিছু পুষ্টিগুণ রয়েছে। যা নবজাতক শিশুরা সহজেই মায়ের বুকের দুধের মাধ্যমে গ্রহণ করে থাকে।

মায়ের দুধ ও মস্তিষ্ক বিকাশের মধ্যে সম্পর্ক দেখানোর জন্য মস্তিষ্কের অভ্যন্তরীণ পরীক্ষা উল্লেখযোগ্য। ম্যাগনেটিক রিসোন্যন্স ইমেজিং (MRI) এর মাধ্যমে জানা গেছে যে, মাতৃদুগ্ধ পান পূর্ণ-মেয়াদী শিশুদের ভেতর ইন্দ্রিয় সংক্রান্ত বহু বৈশিষ্ট্যের সম্পর্ক ঘটায় এবং কৈশোর কালে কর্টেক্সের পুরুত্ব এর ফলে বেড়ে যায়। তবে মাতৃদুগ্ধ এবং মাতৃদুগ্ধ পান করানো এ দু’এর প্রভাব নির্ধারিত সময়ের আগে জন্মানো শিশুদের ওপর অন্যভাবে পড়তে পারে।

একটি গবেষণায় নির্ধারিত সময়ের আগে জন্মানো শিশুদের উপর মাতৃদুগ্ধের প্রভাব দেখা গিয়েছে। যারা ৩০ সপ্তাহের আগে জন্ম গ্রহণ করেছে বা যাদের ওজন ১২৫০ গ্রামের কম, এমন ১৮০ জন শিশু নিয়ে গবেষণাটি করা হয়েছে। এই গবেষণায় শিশুদের জন্মের প্রথম ২৮ দিনে ৫০ শতাংশ এর বেশী মাতৃদুগ্ধ পান করার তথ্য পাওয়া গিয়েছে।

ছোট শিশু এবং ৭ বছর বয়সী শিশুদের মধ্যে উচ্চ জ্ঞান সম্পর্কীয় পরীক্ষা করে দেখা গেছে যে, নির্ধারিত সময়ের আগে জন্মানো শিশুদের মধ্যে মাতৃদুগ্ধ মস্তিষ্কের বিকাশের সম্পর্ক রয়েছে। এটি বুদ্ধিমত্তা, ভালো স্মৃতিশক্তি, পেশীর উন্নত সঞ্চালনার সঙ্গেও জড়িত।

 

তথ্যসূত্র: সাইপোষ্ট।
অনুবাদক: সুপ্তি হাওলাদার।