মূল পাতা / শিশু কিশোর / বিদ্যালয়ের সবুজ প্রাঙ্গণে শিশুর দ্রুত মেধা বিকাশ

বিদ্যালয়ের সবুজ প্রাঙ্গণে শিশুর দ্রুত মেধা বিকাশ

বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে সবুজ মাঠ, ‌উদ্যান ও গাছ শিশুদের দ্রুত মেধা বিকাশে সহায়ক ভূমিকা রাখে। সম্প্রতি একটি গবেষণা শেষে এমন কথাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

এর সত্যতাও মিলেছে ফ্রান্সের একটি বিদ্যালয়ে। একটি জার্নালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে স্পেনের বার্সেলোনার দ্যা সেন্টার ফর রিসার্চ ইন এনভায়রনমেন্টাল এপিডেমিওলজির গবেষক মার্ক নিউইয়েনহুইসেন বলেন, বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে বিভিন্ন প্রজাতির, বিভিন্ন আকারের গাছ ও ঘাস শিশুদের মেধা বিকাশে সহায়তা করে। ফ্রান্সের একটি বিদ্যালয়ে গবেষণা চালিয়ে এমন তথ্যই পাওয়া গেছে। যে কারণে প্রতিটি বিদ্যালয়ে সবুজ উদ্যান থাকা জরুরি।

কিন্তু গবেষণায় অংশ নেননি এমন এক গবেষক সমালোচনা করে বলেন, গবেষণাটিতে কেবল মেধা বিকাশের কথা বলা হলেও মুক্ত বায়ু ও সবুজের অন্যান্য যে প্রভাব রয়েছে তা অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। একই কথা বলেন দ্যা ইউনিভার্সিটি অব উইসকনসিনের পপুলেশন হেলথ সায়েন্স বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ক্রিস্টেন মালেকি। তার মতে, গবেষণাটিতে শারীরিক পরিবর্তনের বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত না করা হলে, মূল বিষয়টি অসম্পূর্ণ থেকে যায়। যদিও সবুজ আবহ শারীরিক এবং মানসিক ক্ষেত্রে কেন উপকারি তা সুনির্দিষ্ট করে বলা কঠিন।

বার্সেলোনার একটি বিদ্যালয়ে ৭ থেকে ১০ বছর বয়সী ২ হাজার ৬শ শিশুর ওপর প্রায় এক বছর গবেষণা চালানো হয়। প্রতি তিন মাস পরপর তাদের স্মৃতি শক্তি ও মনোযোগ পরীক্ষা করা হয়।

দেখা যায়, কেবল সবুজ আবহের কারণে এসব শিশুদের মেধা বিকাশে দ্রুত গতি এসেছে। আরও দেখা গেছে বিদ্যালয়ের মতো যাদের বাড়িও সবুজ ঘেরা সেসব শিশুদের বিকাশ আরও লক্ষণীয়। যারা এমন পরিবেশে বড় হয় না, এসব শিশুর চেয়ে গবেষণায় অংশ নেওয়া শিশুদের মেধা বিকাশের হার ৫ থেকে ৬ শতাংশ বেশি।

দিনের বেশিরভাগ সময় কেটে যায় বলে গবেষকরা সবুজ বিদ্যালয়ের ওপর বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। তাদের মতে সবুজ পরিবেশ শিশুদের ক্লান্তিও দূর করে। যে কারণে লেখা-পড়ায় তাদের মনোযোগ অনেক বেড়ে যায়।