মূল পাতা / প্রতিদিনের চিঠি / মাঝে মাঝে প্রতিশোধ নেওয়ার চিন্তা মাথায় ঘুরতে থাকে

মাঝে মাঝে প্রতিশোধ নেওয়ার চিন্তা মাথায় ঘুরতে থাকে

আমাদের প্রতিদিনের জীবনে ঘটে নানা ঘটনা, দুর্ঘটনা। যা প্রভাব ফেলে আমাদের মনে। সেসবের সমাধান নিয়ে ‘প্রতিদিনের চিঠি’ বিভাগ। এই বিভাগে প্রতিদিনই আসছে নানা প্রশ্ন। যেগুলোর উত্তর দিচ্ছেন অধ্যাপক ডা. সালাহ্‌উদ্দিন কাউসার বিপ্লব। আমাদের আজকের প্রশ্ন পাঠিয়েছেন আশিকুর রহমান (ছদ্মনাম) –

প্রতিদিনের চিঠি

চিঠি

স্যার, আমার ৭ বছর ধরে একটি মেয়ের সাথে সম্পর্ক ছিলো। এটাই ছিলো আমার জীবনের প্রথম সম্পর্ক। আমাদের বিয়ে হয়েছে ৪ বছর। আমরা একি বাসায় এই ৪ বছর যাবত ছিলাম। যেকোনো কারণে সে আমাকে ভুল বুঝে আমার সাথে প্রতারণা করে অন্য কাউকে বিয়ে করে ফেলেছে। এখন আমি নিজেকে কোনভাবেই মানিয়ে নিতে পারছিনা। অলরেডি আমি অনেকগুলো ঘুমের ওষুধ খেয়ে হাসপাতালে ছিলাম। আমার মূল সমস্যা হচ্ছে একে তো আমার জীবনের প্রথম সম্পর্ক তার উপরে তার সমস্ত স্মৃতি আমাকে কুরে কুরে খাচ্ছে। মনে হয় আমার বেঁচে থাকা খুবি কঠিন। মাঝে মাঝে প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য খুব বাজে বাজে চিন্তা মাথায় ঘুরতে থাকে। আরেকটা বড় সমস্যা হচ্ছে যেহেতু সে আমার বিয়ে করা বউ ছিলো। তাই তার সাথে কাটানো মুহূর্তের কথাগুলো মনে পড়লে আমি পাগল হয়ে যাই। মানে আমার খুবই শারীরিক চাহিদার সমস্যা হচ্ছে। সব কিছু মিলিয়ে আমার মনে হচ্ছে আমি পাগল হয়ে যাব। আমার পরিবারে এমনিতেই মানসিক সমস্যা আছে। আমার মা,বড় খালা দুই জনেই মানসিক রোগী। আমি এককথায় শারীরিক ও মানসিক দুই ভাবেই খুব গুরুতর অসুস্থ এমতাবস্থায় আমি কি করতে পারি?

 

উত্তর

আপনার কথাগুলো পড়ে খারপই লাগলো। আপনার কষ্টের কথাগুলো যেকোনো মানুষের মনেই কষ্ট দেবে। আপনি যদি ঢাকায় থাকেন তবে দেরী না করে সরাসরি দেখা করুন। আর যদি ঢাকার বাইরে থাকেন তবে আপনার কাছাকাছি যেকোনো একজন মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞের সাথে দেখা করুন। যেকোনো কিছু হারানোর পর কষ্ট লাগবে এটাই স্বাভাবিক। যত বড় হার তত বেশী কষ্ট। আর সম্পর্ক হারানোর কষ্ট অনেক। এটাও সত্যি একসময় মানুষ আবার নিজের ভিতর ফিরে আসে। আবার নিজের প্রয়োজনীয় বিষয়গুলি তৈরী করে নেয়, নিজের মতো করে। সেই দিনের জন্য অপেক্ষা করা বা করতে পারা সব সময় সময় সম্ভব হয় না। আপনার যেহেতু কষ্টগুলো অনেক বেশী, যেহেতু রাগও হচ্ছে, সেই সাথে ঘুমের ওষুধ খাওয়ার মতো ঘটনাও ঘটেছে, আপনার কিছুতেই দেরী করা ঠিক হবেনা। বেঁচে থাকাও আপনি কঠিন মনে করছেন। আপনার জন্য সাইকোথেরাপী জরুরি। যদি সম্ভব হয়  আপনার কাছের মানুষ বা বন্ধুবান্ধব, যাদেরকে আপনি বিশ্বাস করেন, যাদের উপর আপনি যেকোনে বিষয়ে নির্ভর করতে পারেন এমন মানুষদের সাথে বিষয়গুলি নিয়ে আলাপ করুন। মনে রাখতে হবে, গ্রহণযোগ্য নয় এমন কোনো কাজই আপানার জন্য শেষ পর্যন্ত আপনার জন্যই অসুবিধা নিয়ে আসবে। আপাতত টেবলেট সেট্রা ৫০ মিগ্রা, সকালে একটা করে নাস্তার পর এবং টেবলেট পেইজ ০.৫ মিগ্রা, সকালে ও রাতে অর্ধের করে খেতে শুরু করতে পারেন। তবে অবশ্যেই সরাসরি কোনো একজন বিশেষজ্ঞের সাথে দেখা করবেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব।

**দ্রষ্টব্য: প্রতিদিনের চিঠির সকল উত্তর কেবল প্রাথমিক পরামর্শ হিসেবে দেওয়া হয়।  চিকিৎসকের সাথে সাক্ষাতে চূড়ান্ত পরার্মশ  নিন।

ইতি,
প্রফেসর ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব
  • চেয়ারম্যান ও অধ্যাপক - মনোরোগবিদ্যা বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।
  • সেকশন মেম্বার - মাস মিডিয়া এন্ড মেন্টাল হেলথ সেকশন অব 'ওয়ার্ল্ড সাইকিয়াট্রিক এসোসিয়েশন'।
  • কোঅর্ডিনেটর - সাইকিয়াট্রিক সেক্স ক্লিনিক (পিএসসি), মনোরোগবিদ্যা বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।
  • সাবেক মেন্টাল স্কিল কনসাল্টেন্ট - বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্রিকেট টিম।
  • সম্পাদক - মনের খবর। চেম্বার তথ্য - ক্লিক করুন