মূল পাতা / প্রতিদিনের চিঠি / আপনার রোগের নাম সম্ভবত জেনারালাইজড এংজাইটি ডিজঅর্ডার

আপনার রোগের নাম সম্ভবত জেনারালাইজড এংজাইটি ডিজঅর্ডার

আমাদের প্রতিদিনের জীবনে ঘটে নানা ঘটনা, দুর্ঘটনা। যা প্রভাব ফেলে আমাদের মনে। সেসবের সমাধান নিয়ে ‘প্রতিদিনের চিঠি’ বিভাগ। এই বিভাগে প্রতিদিনই আসছে নানা প্রশ্ন। যেগুলোর উত্তর দিচ্ছেন অধ্যাপক ডা. সালাহ্‌উদ্দিন কাউসার বিপ্লব। আমাদের আজকের প্রশ্ন পাঠিয়েছেন আকবর হোসেন (ছদ্মনাম) –

প্রতিদিনের চিঠি

চিঠি

আমার বয়স ২২ বছর। আমি অনার্স ৩য় বর্ষে পড়ি। আগে আমার অযথা বমি বমি আসতো তবে আমি বুঝতাম না কেনো এমনটা হতো। ডাক্তার অনেক বমির ট্যাবলেট দিছে; খেয়েছি বাট কোন কাজ হয় নি। ২০১৪ সাল থেকেই আমার এমন। তার পর আস্তে আস্তে বুঝতে পারলাম আমি যখন টেনশন এ থাকি তখনই এমনটা হয়। তারপর ২০১৬ তে এক ডাক্তার ক্লোনাজিপাম ঔষধ দেয়।সেটা খেয়ে একেবারে সুস্থ আমি। বমি বমি ভাব ও নাই ঘুম ক্লিয়ার হতো। এভাবে ১ বছর চলে যায়। ২০১৭ তে এসে ওই ওষুধে আর কাজ হয় না। তারপর ঢাকা একজন নিউরোলজিষ্ট ডাক্তার দেখালাম তার কিছু ওষুধ খেয়ে আমি সুস্থ সেগুলো হলো, ইলোডেপ, এডিলাক্স, ক্লোনিয়াম০.৫, ইনডেভার৪০। কিন্তু এখনো ওই ওষুধ গুলা না খেলে আমার ঘুম ক্লিয়ার হয় না। কিছুই ভালো লাগে না। আর অকারোনে অনেক টেনশন হয়। কেমন যেন একটা ভয় হয়। আমার এখন কি করণীয়? আমি আপনাদের এখানে আস্তে চাই। ভালো চিকিৎসা নিতে চাই।

উত্তর

আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আপনার অযথা বমি বমি হয়, নিউরোলজিস্ট দেখিয়েছেন, উনি আপনাকে চিকিৎসা দিয়েছেন, কিছুদিন ভালো থাকার পর এখন নতুন করে ঘুমের সমস্যা। দেখুন আপনি যখন বুঝতে পারলেন আপনার টেনশনের জন্য এমন হয়, তাহলে নিউরোলজিস্ট না দেখিয়ে মনোরোগ বিশেষজ্ঞ দেখানো দরকার ছিলো। আপনার এটাতো নিউরোলজির কোনো রোগ নয় বা নার্ভের কোনো রোগ না। যাহোক, বোঝা যাচ্ছে যেসব সিচুয়েশনে আপনার অনিশ্চয়তা থাকে সেখাইনেই আগে আপনার টেনশন বেশী হতো। বর্তমানের অকারণেও খারাপ লাগে। ভয় হয়। কারো যখন অকারণে ভয় হয়, বা সময় মনে হয় কি যেন হয়ে যাচ্ছে তখন সেটা অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়েই দেখতে হবে।

আপনার হরমোনের পরীক্ষা করানোও দরকার। সেই সাথে অন্য কোনো শারীরিক রোগ আছে কিনা সে ব্যাপরেও ক্লিয়ার হয়ে নেয়া ভালো। আপনার ওষুধের পাশাপাশি রিলাক্সেশন বা প্রশান্তি করণ (কেউ কেউ শিথীলায়ন বলে) ব্যায়াম শিখা এবং রেগুলার সেটা করাও জরুরি। ওষুধের ভিতর আপাতত টেবলেট আরপোলাক্স  ২০ মিগ্রা, সকালে নাস্তার পর একটা করে এবং ক্লোনাট্রিল/ক্লোনিয়াম .৫মিগ্রা, সকালে অর্ধেক এবং রাতে একটা, সেই সাথে ইনডেভার ১০ মিগ্রা, সকালেও রাতে খেতে পারেন। তবে পারলে সরাসরি দেখা করুন। সেটাই ভালো হবে। আপনার রোগের নাম খুব সম্ভব জেনারালাইজড এংজাইটি ডিজঅর্ডার। শুভ কামনা রাইলো।

ইতি,
প্রফেসর ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব
  • চেয়ারম্যান ও অধ্যাপক - মনোরোগবিদ্যা বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।
  • সেকশন মেম্বার - মাস মিডিয়া এন্ড মেন্টাল হেলথ সেকশন অব 'ওয়ার্ল্ড সাইকিয়াট্রিক এসোসিয়েশন'।
  • কোঅর্ডিনেটর - সাইকিয়াট্রিক সেক্স ক্লিনিক (পিএসসি), মনোরোগবিদ্যা বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।
  • সাবেক মেন্টাল স্কিল কনসাল্টেন্ট - বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্রিকেট টিম।
  • সম্পাদক - মনের খবর। চেম্বার তথ্য - ক্লিক করুন