মূল পাতা / ফিচার / পুরুষরাই মনের কষ্ট লুকিয়ে রাখে বেশি: গবেষণা

পুরুষরাই মনের কষ্ট লুকিয়ে রাখে বেশি: গবেষণা

নারীদের তুলনায় পুরুষরাই তাদের মনের কষ্ট বেশি লুকিয়ে রাখে। সম্প্রতি আমেরিকার ভার্জিনিয়া ইউনিভার্সিটির মনোস্তত্ত্ববিদ্যা বিভাগের গবেষকগণ এবং হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কিছু গবেষক যৌথ প্রচেষ্টায় গবেষণার পর এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন। তারা মোট ১১টি পর্যায় সমীক্ষা এবং গবেষনা পরিচালনা করে এই তথ্য পেয়েছেন।

এই গবেষনা থেকে যে তথ্য সামনে এসেছে তা হল, মনের দু:খ শেয়ার করার পরিবর্তে পুরুষরা তা নিজেদের মধ্যেই আবদ্ধ রাখতে চেষ্টা করেন বেশিরভাগ সময়। মনস্তত্ত্ব বিভাগের গবেষকরা এই বিষয়ে জানিয়েছেন, এই গবেষনা থেকে পুরুষ মনস্তত্ত্ব সম্পর্কে বেশ কিছু নতুন তথ্য তাদের সামনে এসেছে ।

১৮ থেকে ৭৭ বছরের পুরুষদের মধ্যে এই সমীক্ষা নেওয়া হয়েছে। এই সমীক্ষা থেকে জানা গিয়েছে বেশিরভাগ পুরুষরা দুঃখ নিয়ে খুব বেশি ভাবনা চিন্তা করেননা এবং এটি যে শেয়ার করা যায়, তা নিয়ে খুব বেশি আমলও দেন না। এমনকি নিজের খুব কাছের মানুষের কাছ থেকেও তারা এই সংক্রান্ত বিষয় গোপন করে যান।
এই সমস্যাগুলি এড়ানোর জন্য পুরুষরা বাইরের জগত বা অন্য ধরনের কাজের সঙ্গে নিজেদের যুক্ত করে রাখেন। কিন্তু সর্বদা এর ফল ভাল হয় না বরং এই কারনে পুরুষদের মধ্যে মানসিক সমস্যা ক্রমাগত বাড়তে দেখা যাচ্ছে এমনটাই জানা গিয়েছে গবেষনা থেকে।

নিজেদের সমস্যার কথা শেয়ার না করার ফলে তা এক সময়ে মাথার মধ্যে চেপে বসে এবং সমস্যাটি সমাধানের আপ্রাণ চেষ্টা করে বিফল হলে তা মানসিক ভারসাম্যের পরিবর্তন ঘটায়। এছাড়াও সমস্যার হাত থেকে নিস্কৃতি পাওয়ার জন্য পুরুষরা অনেক সময় অপরাধপ্রবন কাজের দিকে এগিয়ে যায় এবং অনেকসময় পরিস্থির আত্মহনন পর্যন্ত চলে যায়। তাই গবেষক ও মনস্তত্ববিদদের মত নিজের যে কোন সমস্যা কাছের মানুষের সঙ্গে খোলাখুলি ভাবে আলোচনা করুন।

সূত্র-জিনিউজ