মূল পাতা / জীবনাচরণ / মন প্রতিদিন / ১০ টি সহজ চর্চাই পারে সম্পর্ককে সুস্থ রাখতে

১০ টি সহজ চর্চাই পারে সম্পর্ককে সুস্থ রাখতে

সঙ্গী-সঙ্গিনীকে তো কতজন কত উপহার দেন। চাইলে আপনি আপনার চমৎকার গুণের শক্তিও উপহার দিতে পারেন- যা তাকে মানসিক এবং শারীরিকভাবে শক্তিশালী করবে। বুঝিয়ে বলি- মনে আছে আপনাদের সম্পর্কের প্রথম দিনগুলোর কথা? হয়ত আপনি আপনার সঙ্গী বা সঙ্গিনীর হাত আলতো করে ধরে পার্কে বা রাস্তায় হাঁটতেন, কখনও বসে থাকতেন- আপনার দেহমন মোহাচ্ছন্ন আনন্দে মাতাল হয়ে থাকত। সময় যত যেতে থাকে, সেই একই অনুভুতির জন্য আরও বেশি কিছু করার প্রয়োজন পড়ে। শেষে এক সময় সম্পর্ক দূর্বল আর নিস্তেজ হয়ে পড়ে।

তো কী করা উচিত?

আনন্দের কথা হল যে চমৎকার গুণসম্পন্ন শক্তি সম্পর্ককে অতীতের মত উজ্জ্বল এবং সহানুভূতিশীল করে; চাইলে সেটা নিজেই সৃষ্টি করা যায়। তবে এজন্য বর্তমানে দেহমনের শক্তির ব্যবহারের ধরন পাল্টাতে হয়।

দেহমনের সব শক্তি ব্যবহার করে নিজের ইচ্ছা মত জীবন বেছে নেয়া সম্ভব। শক্তির প্রাত্যহিক ব্যবহারের ওপরই এই পরিবর্তন নির্ভর করে। চলুন দেখে নেয়া যাক:

১) ধ্যান:
নিজের সবচেয়ে চনমনে মন নিয়ে সঙ্গী বা সঙ্গিনীর সাথে দিনটি শুরু করুন। চনমনে মনের জন্য রাতে ঘুমানোর আগে এবং সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর ধ্যানের অভ্যাস করুন। ভয়ের কিছু নেই। ৩ থেকে ৪ মিনিটের ধ্যান- আপনার মনে ইতিবাচক শক্তি আর প্রাণবন্ত অনুভূতি এনে দেয়ার জন্য যথেষ্ট। চাইলে আরও বেশি সময় নিতে পারেন। ধ্যানের শক্তি আপনাকে সারাদিন আপনার ইতিবাচক শক্তি দিয়ে চনমনে রাখবে। চাইলে দিনের অন্যান্য সময়ও করতে পারেন।

২) রঙের ব্যবহার:
উজ্জ্বল পোশাক পড়ুন যা আপনাকে সুখানুভূতি দেবে। যদি আপনার রুচিবোধের সাথে মানানসই না হয়; তবে মেয়েরা অলংকার, ছেলেরা পছন্দমত ঘড়ি বা চশমা ব্যবহার করতে পারেন। ফোনে বা কোনো ডিভাইসে ছবি দেখার সময় প্রকৃতির রঙের দিকেও চোখ রাখবেন। রঙ বৈচিত্র্য আপনার দেহমনে আনন্দের অনুভূতি জাগিয়ে তুলতে পারে। আনন্দের অনুভূতি আপনার সম্পর্ককে সুন্দর করবে।

৩) পুরোনো স্মৃতি ব্যবহার:
সম্পর্কের শুরুর দিকের স্মৃতিগুলো মধুর হয়। সঙ্গী বা সঙ্গিনীর সাথে মধুর স্মৃতির যে অংশগুলো আপনার ভাল লেগেছিল সেগুলো মনে করুন। স্মৃতি থেকে আনন্দ সংগ্রহ করুন। অতীতের আনন্দে বর্তমানকে সিক্ত করুন।

৪) সুগন্ধির শক্তি ব্যবহার:
সঙ্গী বা সঙ্গিনীর সাথে প্রথম দেখায় বা বিয়ের সময় যে সুগন্ধি সে ব্যবহার করেছিল তা নিশ্চয় মনে আছে। সুগন্ধি মনের আবেগকে খুব দ্রুত প্রজ্জ্বলিত করে। আবেগ-মেশানো স্মৃতিচারণায় সুগন্ধির কথা মনে করলে আপনার দেহমনেও সুখানুভূতির ঢেউ খেলে যাবে।

৫)সঙ্গীতের শক্তি ব্যবহার:
সঙ্গী বা সঙ্গিনীর সাথে পছন্দের গানের একটি তালিকা করুন। অতীত আর বর্তমানের পছন্দকে প্রাধান্য দিন। যে গানগুলোর অর্থ আছে আপনাদের সম্পর্কে। হতে পারে প্রথম সাক্ষাতের সময়ের কোনো গান বা অন্য কোনো আবেগঘন মুহূর্তের। এইগানগুলোও বর্তমান ও ভবিষ্যতের জন্য আপনার মনে ইতিবাচক শক্তি জাগাবে।

৬) দৃশ্যের শক্তি:
সঙ্গী বা সঙ্গিনীর সাথে কাটানো চমৎকার মুহূর্তগুলোর ছবি তুলে রাখুন। সেই ছবিগুলো দিয়ে একটা এ্যালবাম বানান। এ্যালবাম আপনাকে বর্তমানে এবং ভবিষ্যতেও ইতিবাচক শক্তি যোগাবে- যা সম্পর্ককে আরও রাঙিয়ে তুলবে।

৭) ব্যায়ামের শক্তির ব্যবহার:
সঙ্গী বা সঙ্গিনীর সাথে মাঝে মাঝে হাঁটুন, জগিং করুন, সম্ভব হলে ছোট নৌকায় ঘুরে বেড়ান। আমাদের সম্পর্কগুলো সব সময়ই একটু একটু করে নতুন রূপ পায় নদীর মত। এই কাজগুলো সেই নতুন রুপকে আকর্ষণীয় করে সম্পর্ককে মজবুত করবে।

৮) মৃদু স্পর্শ ও দুদণ্ড স্বস্তির কথা:
আপনার সঙ্গী বা সঙ্গিনীর সাথে কথা বলার সময় গভীরভাবে মনোযোগ দিয়ে শুনুন। আলতো করে স্পর্শ করুন। তাকে আশ্বস্ত করুন- আপনি তার কথা শুনছেন। দেখবেন, এই ছোট্ট কাজ আপনাদের সম্পর্কে কেমন চমৎকার অনুভূতি এনে নিতে পারে।

৯) গুণাবলি ব্যবহার:
স্বীকৃতি, সহানুভূতি, সততা, শান্তি এবং শর্তহীন ভালবাসা- বিশ্বমানের গুণ। এমন কাজ করুন, কথা বলুন, যেন এই গুণগুলো আপনার সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে পরিবেষ্টন করে রাখে।

১০) ভাবনার প্রতিফলনের জন্য সময় দেয়া:
মাঝে মাঝে সুস্থির হন। সঙ্গী বা সঙ্গিনীর শারীরিক, মানসিক এবং আত্মার উপস্থিতি উপভোগ করুন। আপনাদের দুজনের মিলিত শক্তি উপভোগ করুন। চমৎকার সময়টাকে উপভোগ করুন। স্মৃতিতে বাঁধিয়ে রাখুন। এই স্মৃতিগুলো সামনে আপনাকে শক্তি যোগাবে।

সাইকোলজি টুডে অবলম্বনে লিখেছেন,
মাফাসি আহমেদ ফেরদৌস অনিক