মূল পাতা / জীবনাচরণ / আবেগ উপলব্ধি করতে শিখুন

আবেগ উপলব্ধি করতে শিখুন

আবেগ অনুভব করতে হয়। এবং এটা বোঝা কঠিন, বিশেষ করে যদি আপনি কি অনুভব করছেন তা প্রথমেই সনাক্ত করতে সত্যিই না শেখানো হয়, যদি আপনি নিজের অনুভূতিগুলোকে উপেক্ষা করে বছর কাটান। আমরা অনেকেই আমাদের নিজেদের দেহের মধ্যে কী ঘটছে তা থেকে বিচ্ছিন্ন ।এমনকি আমাদের মধ্যে অনেকেই নিজেদের থেকেও বিচ্ছিন্ন।

সৌভাগ্যক্রমে আমরা একটি নিয়মিত ভিত্তিতে পুনরায় সংযোগ স্থাপন করতে পারি। আমাদের ভিতর দিয়ে কী যাচ্ছে তা আমরা শিখতে পারি, শুনতে পারি এবং অনুশীলন করতে পারি। আমরা যত বেশি অনুশীলন করব, আমাদের আবেগ সনাক্ত করা ততো বেশি সহজ হবে ।

আমরা একাকীত্বে নিজেদের সাথে বসে শুরু করতে পারি ।আমাদের ভেতরে কী ঘোরাঘুরি করছে তা লিখে রেখে শুরু করতে পারি।আমরা অনুভূতিগুলো কীভাবে অনুভব করছি এবং আমাদের মনে কী চলছে এমন ভাবনাগুলো লিখতে পারি। নিচের উদ্যোগগুলো আপনাকে অনুভূতি উপলব্ধি শুরু করতে সহায়তা করতে পারে বা কেবল আপনার আবেগগত জীবনকে অগ্রাধিকার দেওয়ার জন্য অনুপ্রাণিত করতে পারে।

  • আপনি আপনার অনুভুতি আবেগ সনাক্ত করুণ । কিছু গভীর শ্বাস নিন, আপনার বুকে হাত রাখুন এবং জিজ্ঞাসা করুন আপনার আবেগ আপনাকে কী বলতে চেষ্টা করছে । যেমনঃ ,বিষন্নতা, তুমি আমার কাছে কি জানতে চাচ্ছো ?  ঈর্ষা,তু মি নিদারুণভাবে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছ কি?
  • এখন বিপরীত পদ্ধতি গ্রহণ করুন এবং আপনার আবেগ থেকে একটি চিঠি লিখুন ।আপনি  আপনার আবেগ থেকে কি জানতে চান?
    ১ থেকে ১০ এর মধ্যে আপনার আবেগ পরিমাণ করুন । অথবা রঙ্গিন পেন্সিল বা মার্কারের সাহায্যে এর শক্তি বা তীব্রতা চিত্রিত করুন ।
  • আপনার অনুভূতির গল্প লিখুন । আগে আপনি কী উপায়ে অনুভব করেছিলেন ? এটা অতীতে সম্পর্কিত ছিল কি ? এটি আজকের সাথে সম্পর্কিত কি ? আপনার অনুভূতিটি যতটা সম্ভব আপনি বর্ণনা করতে পারেন ।
  • লিখুন কেন আপনি ভীত বা দ্বিধাগ্রস্ত বা আপনার অনুভূতি উপলব্ধি করতে অনিচ্ছুক । অথবা লিখুন কেন আপনি এত ব্যথা অনুভব করছেন ।
  • আপনি যদি রাগ করে থাকেন, তবে সেই ক্রোধের পেছনের কারণটি অনুসন্ধান করুন । প্রায়ই এটি হতাশা, আঘাত, বিষণ্নতা, লজ্জা হয়ে থাকে ।
  • একটি পৃথক সত্তা হিসাবে, দূর থেকে আপনার আবেগ পর্যবেক্ষণ করুন । এটা কি কথা বলবে এবং হাঁটবে? এটা কিসের মতো দেখতে ? আপনি এটি নিচে লিখতে বা এটি আঁকতে পারেন ।
  • আপনি আন্তরিকভাবে কাউকে বিশ্বাস করেন এমন কারো কাছে আপনার আবেগ বর্ণনা করছেন বলে বিশ্বাস করুন ।যদি আপনার জীবনে এমন কেউ থেকে থাকে,তাদের কাছে বলুন আপনি কেমন অনুভব করছেন ?
  • আপনি এই আবেগ বা এটির পার্শ্ববর্তী পরিস্থিতি সম্পর্কে নিজেকে কি বলেছেন তা লিখুন ।যেমনঃ  আমি তার সাথে রাগ করতে পারি না কারণ সব দোষ আমার । সুখ আমার প্রাপ্য নয় । আমি এই ব্যথা অনুভব করতে পারছি না । এটা মাত্রাতিরিক্ত ।আমি যথেষ্ট শক্তিশালী নই ।
  • আপনার আবেগ স্পষ্ট বা অন্তর্নিহিত যাই হোক না কেন, তা লিখুন । যেমন: কান্না দুর্বল মানুষদের জন্য । এত ছোট কিছু সম্পর্কে বিরক্ত হওয়া উচিত নয়।আমি খুবই সংবেদনশীল । যদি আমি আমার সঙ্গীকে বলি, আমি বিচলিত হই, তারা আমাকে ছেড়ে চলে যাবে ।অনুভূতিগুলো অসুবিধাজনক, অপ্রয়োজনীয় বা এমনকি বিপজ্জনক ।আমার অনুভূতির জন্য সময় নেই ।
  • প্রতিদিন সকালে এসব লিখুন । আপনার চিন্তাভাবনা এবং অনুভূতির মধ্যে মিল করার একটি দৈনন্দিন অভ্যাস করুন ।

আপনি একটি উদ্যোগ নিয়ে কাজ করছেন, আপনাকে নিজের সাথে সৎ হতে হবে। মনে রাখবেন, যা-ই হোক না কেন, আপনি সমালোচনা বা বিচার করবেন না।সবকিছুকে নিজের সামনে আমন্ত্রণ করুন এবং সব লিখুন বা অঙ্কন করুন । এভাবেই আমরা আমাদের অনুভূতি উপলব্ধি করতে শুরু করতে পারি, এইভাবে আমরা নিজেদেরকে সম্মান করতে পারি।

তথ্যসূত্র: সাইকসেন্ট্রাল ডটকমে প্রকাশিত  Margarita Tartakovsky এর রচনা অবলম্বনে লিখেছেন সুমাইয়া জান্নাত।
লিংক: https://blogs.psychcentral.com/weightless/2018/04/making-sense-of-your-emotions/