মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা সংস্কারে উদ্যমী হচ্ছে টেক্সাস

শুধুমাত্র টেক্সাস আইনসভা অধিবেশন শেষ হয়েছে এর মানে এই নয় যে মানসিক স্বাস্থ্য সেবা সংস্কারের কাজ তাৎপর্যপূর্ণভাবে হয়েছে। গত বছর হাউস স্পিকার জো স্ট্রস রাষ্ট্রের মানসিক স্বাস্থ্যের অবস্থা নিয়ে গবেষণা এবং পর্যবেক্ষণ করার জন্য একটি হাউস কমিটি গঠন করেন। যা হাউসের অন্যান্য সদস্যদের দ্বারা মনোনীত হয়।

মানসিক স্বাস্থ্য সেবার প্রাচীন সিস্টেমের মধ্যে একটি পরিবর্তনের প্রয়োজন ছিল। আর কীভাবে এই পরিবর্তনটি অর্জন করা সম্ভব তা সম্পর্কে হাউস কমিটি সুপারিশ করেন। প্রথম বৈঠকে প্রতিনিধি ক্রিস টারনার ডি গ্রান্ড প্রেইরি হাউস কমিটির গুরুত্ব উপলব্ধি করেন।

তিনি বলেন, “আমি যে ব্যাপারটি নিয়ে আতংকিত তা হলো আসলে মানুষ এই কমিটিতে কাজ করতে ইচ্ছুক কি না অথবা এই কমিটি কতটুকু ঠিকভাবে কাজ করবে। এবং সত্যি আগ্রহের সাথে অপেক্ষা করছি কীভাবে অর্থপূর্ণ ভাবে আইনসভা বিষয়টি দেখছে এবং একদিক থেকে কমিটি কাজ করছে”।

মানসিক স্বাস্থ্য সেবা সংস্কারের জন্য প্রায় ৪০০ মিলিয়ন ডলার অর্থ বরাদ্দ রয়েছে। এর মধ্যে ৩০০ মিলিয়ন ডলার রাজ্যের মানসিক স্বাস্থ্য হাসপাতালগুলো সংস্কার, উন্নয়ন এবং সম্প্রসারণের জন্য রয়েছে।

মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার উন্নয়নের জন্য প্রায় ২০টি বিলের দাখিল করা হয়েছে। তবে এরমধ্যে হাউস বিল ১০, বিল ১১, বিল ১২, বিল ১৩ সবচেয়ে বেশি তোপের মুখে রয়েছে। প্রত্যেকটি বিল কমিটির পক্ষ থেকে যেসব অঞ্চলের দিকে দৃষ্টিপাত করা হয়েছে সেসব অঞ্চলগুলোকে কেন্দ্রবিন্দুতে রাখা হচ্ছে। হাউস বিল ১০ মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার প্যারিটি আইনকে শক্তিশালী করে। হাউস বিল ১১ মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার প্রাথমিক হস্তক্ষেপ এবং স্কুলগুলোতে  মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার প্রাথমিক দিকগুলো নিয়ে শিক্ষা প্রদান করা। হাউস বিল ১২ ফৌজদারি অপরাধীদের ডাইভার্শন তৈরির জন্য। হাউস বিল ১৩ সম্প্রদায় ভিত্তিক মানসিক স্বাস্থ্য কর্মসূচির জন্য অনুদান প্রদান করে।

সত্যিকারের মানসিক স্বাস্থ্য সেবা সংস্কারের জন্য এই চারটি এলাকার প্রয়োজন। শুধুমাত্র ২টি বিল সরকারী দিক পরিচালনা করবে- হাউস বিল ১০ এবং বিল ১৩। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সমস্যাটি তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে মোকাবেলা করেছিল, কিন্তু সংস্কারের গুরুত্বপূর্ণ অংশগুলি রুমের ভেতরই রেখে দেওয়া হয়েছিল। আলোচনা হয়নি। হাউস বিল ১১ এবং বিল ১২ এর শেষ করার সাথে রাষ্ট্রের মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার প্রাথমিক হস্তক্ষেপ এবং ডাইভারশন এর ফাটলগুলো নিয়ে কাজ করে।

মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার একদম প্রাথমিক পর্যায়ে চিকিৎসা করা মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা মোকাবিলা করার সর্বোত্তম উপায়। রাষ্ট্রের অর্ধেকের বেশি অপরাধীদের মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা রয়েছে। এই দিকটাতেই সবচেয়ে বেশি সংস্কারের দরকার।

কিন্তু সবকিছু শেষ হয়ে যায়নি। হাউস বিল ১০ আর বিল ১৩ রাষ্ট্রের মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা উন্নয়নের জন্য কাজ করবে। এটি খুব ভাল একটি শুরু কিন্তু মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার সংস্কারে আরও অনেক কিছু করার আছে। টেক্সাসকে মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার সংস্কারে আরও অনেক কিছু করতে হবে, আইনসভা অধিবেশন কিছু করুক আর নাই করুক।

তথ্যসূত্র-
(http://www.star-telegram.com/opinion/editorials/article154167744.htm)

কাজী কামরুন নাহার, আন্তর্জাতিক ডেস্ক
মনেরখবর.কম