ওসিডির কারণে যৌনসক্রিয়তা বাধাগ্রস্ত হতে পারে

ওসিডির কারণে যৌনসক্রিয়তা বাধাগ্রস্ত হতে পারে

আপনি যদি অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিজঅর্ডারে ভুগে থাকেন তাহলে আপনি ভালো করেই জানেন কারো সাথে ঘনিষ্ঠ রোমান্টিক সম্পর্ক রাখতে হলে কী ধরনের কষ্ট করতে হয় আপনাকে। বিশেষ করে যৌনতার মতো একটি স্পর্শকাতর বিষয়ে আপনাকে অনেক বাধার মুখোমুখি হতে হয়। কারণ অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিজঅর্ডারের অনেকগুলো লক্ষণের সাথে যৌনতা জড়িত।

যেমন ধরা যাক, নোংরা জিনিসের প্রতি আপনার ভয়। সেক্ষেত্রে সিমেন বা বীর্য আপনাকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে দিতে পারে যদি বীর্যকে আপনি নোংরা জিনিস হিসেবে দেখেন। ঠিক একইভাবে প্রি- ইজ্যাকুলেটরি ফ্লুইড বা কামরস আপনাকে বিব্রত করতে পারে। মেয়েদের ক্ষেত্রে ভ্যাজিনাল লুব্রিকেশন বিপত্তিতে ফেলতে পারে। অথচ যৌন উত্তেজনার সময় পুরুষের ক্ষেত্রে কামরস এবং নারীদের ক্ষেত্রে ভ্যাজাইনাল লুব্রিকেশন হওয়াটা একটা স্বাভাবিক শারীরবৃত্তীয় ঘটনা। স্বাস্থ্যকর রোমান্টিক সম্পর্কের জন্য যৌনসক্রিয়তা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিজঅর্ডার অনেকভাবেই যৌনসক্রিয়তায় বাধা সৃষ্টি করে। আবার অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিজঅর্ডারের রোগীদের মধ্যে যৌন সমস্যা বেশি হয়।

এটা গবেষণায় প্রমাণিত। অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিজঅর্ডারে ভোগা প্রায় শতকরা ৮০ ভাগ নারী এবং শতকরা ২৫ ভাগ পুরুষ যৌন সমস্যায় ভোগেন। গবেষণায় যে ধরনের যৌন সমস্যাগুলো বেরিয়ে এসেছ সেগুলো হলো :

  •  উত্তেজিত হতে সমস্যা
  • যৌন আগ্রহ কম হওয়া
  • যৌন সঙ্গীর ব্যাপারে অসন্তুষ্টি
  • যৌন মিলনে ভয়
  • চরম পুলক লাভে ব্যর্থতা
  • মাত্রাতিরিক্ত বিব্রতবোধ

আবার অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিজঅর্ডার রোগের চিকিৎসায় যে ধরনের ঔষধ প্রেসক্রাইব করা হয় তাতে যৌন আগ্রহ কমে যাওয়ার ঝুঁকি থেকে যায়। যেমন, সিলেকটিভ সেরোটোনিন রি আপটেক ইনহিবিটর গ্রুপের অ্যান্টি ডিপ্রেসেন্টে যৌন অনীহা দেখা দিতে পারে।

যা করা যেতে পারে:

নিজের সিমটম ম্যানেজ করুন
যদি আপনি অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিজঅর্ডারে ভুগে থাকেন তাহলে সবার আগে প্রয়োজন সেগুলো কাটিয়ে ওঠা। বিশেষ করে আপনি যদি যৌনতা সংক্রান্ত কোনো অবসেশনে ভুগে থাকেন যেমন- অশুচি লাগা, যৌন সংক্রান্ত অনাবশ্যক নেতিবাচক চিন্তা আসা। ধর্ষণ, যৌন নির্যাতন বা শ্লীলতাহানির মতো তাড়না বা চিন্তা মনের ইচ্ছার বিরুদ্ধে বারবার মনে আসা। মনে রাখবেন সব রোগীর ক্ষেত্রে এক ঔষধ প্রযোজ্য নয়। তাই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ মোতাবেক ঔষধ সেবন করুন। কোনো না কোনো প্রেসক্রাইব ঔষধ আপনার ওপর কাজ করবেই।

আপনার চিকিৎসককে জানান
অবসেশনের পাশাপাশি যৌন সমস্যা থাকলে অথবা অথবা অবসেশনের কারণে যৌন সমস্যা দেখা দিলে তা আপনার চিকিৎসককে জানান। কিছু সমস্যা আপনি যে ঔষধ খাচ্ছেন তার জন্যও দেখা দিতে পারে। কাজেইঘাবড়ে গিয়ে ঔষধ বন্ধ না করে বরং ঐ সাইড ইফেক্টের কথা চিকিৎসককে জানান।

আপনার সঙ্গীকে অন্তর্ভুক্ত করুন
যৌন সমস্যার কথা চিকিৎসককে অবহিত করার সময় আপানার সঙ্গীকে পাশে রাখুন। তাকে চিকিৎসা কার্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত করুন। লজ্জিত বা কুণ্ঠিত না হয়ে সহজভাবে নিন। সব ঠিক হয়ে যাবে, তাকে পাশে রাখুন। এতে আপনার সুবিধাই হবে। এতে চিকিৎসক আপনার সঙ্গীকে সমস্যাগুলো কেন হচ্ছে, কীভাবে হচ্ছে বুঝিয়ে বলার সুযোগ পাবেন। ফলে আপনার প্রতি আপনার সঙ্গীর সহযোগিতা বাড়বে।

সামাজিক গ্রুপে যোগ দিন
অবসেসিভ কম্পালসিভ ডিজঅর্ডার একটি দীর্ঘমেয়াদি চিকিৎসার মানসিক রোগ। অনেক ক্ষেত্রেই অনেক প্রতিষ্ঠানে সেলফ হেলফ গ্রুপ গঠন করা যায়। এতে রোগীরা তাদের অভিজ্ঞতা এবং অর্জিত জ্ঞানের মাধ্যমে পরস্পর পরস্পরকে সহোযোগিতা করতে পারে। এ ধরনের কোনো গ্রুপে যোগ দেওয়ার সুযোগ থাকলে সেখানে যোগ দিন।

সূত্র: লেখাটি মনের খবর মাসিক ম্যাগাজিনে প্রকাশিত